ভেঙে পড়েছে ১৪ মাথার খেঁজুর গাছ।

93

কালের সমাচার ডেস্ক।

প্রাকৃতিক অনেক কিছুই আমাদের অবাক করে। মুগ্ধ করে আমাদের নয়ন।

এরকমই এক অবাক করা জিনিস ছিল চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলায়।একটা খেঁজুর গাছ।

গাছটির বিশেষত্ব ছিল গাছটিতে একটি নয়, দুইটি নয় ১৪ টি মাথা।

সত্যি অবাক করার মত বিষয়। তবে বুধবার কালবৈশাখী ঝড়ে ভেঙ্গে গেছে গাছটি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার মোবারকপুর ইউনিয়নের চাতরা গ্রামের চৌদ্দ মাথা মোড়ে ছিল ১৪ মাথার একটি খেঁজুর গাছ।

তবে গাছটি আর নেই। ২২ মে বুধবারের কালবৈশাখী ঝড়ে ভেঙে গেছে এ খেঁজুর গাছটি।

বৃহস্পতিবার খবরটি ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন এলাকা থেকে অনেকে এসে গাছটি দেখতে ভিড় করেন।

সকলের অতি পরিচিত ছিল মোবারকপুর ইউনিয়নের চাতরা গ্রামের চৌদ্দমাথার খেঁজুর গাছটি।

একনামে এই গ্রাম ও গাছটিকে চিনতো জেলা তথা শিবগঞ্জ উপজেলার অধিকাংশ মানুষ।

কানসাট এলাকার আমচাষী শহিদুল হক হায়দারী গাছটি ভেঙে যাওয়ার কথা শুনে জানান,

‘১৪ মাথার খেঁজুর গাছটি ভেঙে যাওয়ার সাথে সাথে শিবগঞ্জ উপজেলার আমচাষীদের স্বপ্নও ভেঙে গিয়েছে প্রচণ্ড ঝড়ের তাণ্ডবে।’

উল্লেখ্য, ১৪ মাথার খেঁজুর গাছের খবর স্থানীয়সহ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকাতে প্রকাশিত হওয়ার পর বাংলাদেশের মানুষের মনে এক অদ্ভুত অবাক করা অনুভূতির সৃষ্টি হয়।

কিন্তু ঝড়ের কবলে পড়ে ১৪ মাথার আলোচিত সেই খেঁজুর গাছটি বিলুপ্ত হয়ে গেল।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.