ধানের দাম বাড়ানোর দাবি।

29

কালের সমাচার ডেস্ক।

রাজশাহী সদর আসনের এমপি ও ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা দাবি জানিয়েছেন ধানের দাম মণপ্রতি কমপক্ষে ১ হাজার ১০০ টাকা নির্ধারণের।

তিনি বলেছেন, কৃষকের কমপক্ষে ৯ হাজার ৫০০ টাকা খরচ হয় এক বিঘা জমিতে ধান উৎপাদনে।

তাই ১ হাজার ১০০ টাকার নিচে রাখা যাবে না ধানের দাম।

রাজশাহী জেলা ও মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টি রোববার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বিক্ষোভ-সমাবেশ ও

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালন করে ‘কৃষি বাঁচাও, কৃষক বাঁচাও’ শ্লোগানে ধানের দাম বৃদ্ধির দাবিতে।

পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা রাজশাহী সদর আসনের এমপি ফজলে হোসেন বাদশা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের শহীদ মিনারে অনুষ্ঠিত ওই সমাবেশেই প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।

তিনি বলেন, একটা সময় দেশে দুর্ভিক্ষে মানুষ মারা যেত। প্রযুক্তির ব্যবহারে কৃষির উন্নয়ন হয়েছে।

কৃষি মন্ত্রী বলেন, দেশকে আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ করেছি। এই দেশকে খাদ্যে স্বয়ংম্পূর্ণ করেছে কৃষকরা।

হাড়ভাঙা পরিশ্রম করে কৃষক ফসল ফলায়, কিন্তু তাদের এর কৃতিত্ব দেয়া হয় না।

আরও বলেন বাদশা, দেশে আজকে ধান কাটার শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না।

মন্ত্রীরা বলেন- ক্ষেতমজুরের সংকটও উন্নয়নের মাপকাঠি। অথচ বুঝতে হবে আজকে কৃষির বেহাল দশা।

না খেয়ে মরছে কৃষক। কোনো লাভ নেই উন্নয়নের এসব ফাকা বুলি দিয়ে।

ফজলে হোসেন বাদশাসহ ওয়ার্কার্স পার্টির নেতৃবৃন্দ সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে জেলা প্রশাসক এসএম আবদুল কাদেরকে স্মারকলিপি দেন।

ধানের দাম ১ হাজার ১০০ টাকা নির্ধারণ ছাড়াও দাবি জানানো হয় রাজশাহীর প্রতিটি ইউনিয়নে জরুরিভিত্তিতে সরকারিভাবে ধান কেনা,

কৃষকদের ধান বিক্রি নিশ্চিত, আগামী মৌসুমে কৃষকদের বিনামূল্যে সার, বীজ ও কীটনাশক,

নতুন খাদ্যগুদাম নির্মাণ করে উৎপাদিত খাদ্যশস্যের ১৫ ভাগ মজুদ এবং গুদামে অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দৈরাত্ম বন্ধের।

মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন।

অন্যদের মধ্যে পার্টির জেলার সভাপতি রফিকুল ইসলাম পিয়ারুল, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল হক তোতা,

মহানগরের সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য আবুল কালাম আজাদ, সাদরুল ইসলাম, জেলা কৃষক সমিতির সভাপতি কায়েস উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ফরজ আলী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

নগর ওয়ার্কার্স পার্টির সদস্য মনির উদ্দিন পান্না সমাবেশ পরিচালনা করেন।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.