এসএ টিভির সিইওসহ ৪ জনের, গ্রেপ্তারি পরোয়ানা।

38

কালের সমাচার ডেস্ক।

আদালত বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির বিরুদ্ধে মানহানিকর খবর পরিবেশন করার অভিযোগে দায়ের করা মামলায়,

এসএ টিভির সিইও সালাহউদ্দিন জাকিসহ চারজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন।

রবিবার বিকেলে রংপুরের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম আরিফা ইয়াসমিন মুক্তা এ আদেশ দেন।

মামলার অন্য তিন আসামি, এসএ টিভির চিফ রিপোর্টার বাদশা, স্টাফ রিপোর্টার সোহেল ও সংশ্লিষ্ট একটি ফেসবুক আইডির হিসাবধারী (অ্যাকাউন্ট হোল্ডার) সালাহ উদ্দিন তালুকদার।

মামলার বাদী যুবলীগকর্মী হারুনুর রশীদের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ফিরোজ কবীর চৌধুরী গুঞ্জন মামলা দায়ের ও গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রংপুর নগরের মনোহর চওড়াপাড়া এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে বাদী হারুনুর রশীদ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, বাদী অভিযোগ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর যোগ্য ও নিষ্ঠাবান সংসদ সদস্যদের মধ্য থেকে মন্ত্রিপরিষদ গঠন করেন।

তাঁরা দায়িত্ব পালন করে আসছেন অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে।

মন্ত্রিপরিষদের সম্মানিত সদস্যদের সুনাম ক্ষুণ্ন করার জন্য আসামিরা রাষ্ট্রবিরোধী গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে জহির মিয়াকে প্ররোচিত করে তাঁর একটি উদ্দেশ্যমূলক ও মনগড়া সাক্ষাত্কার ধারণ করেন

এবং সালাহ উদ্দিন তালুকদারের ফেসবুক পেজে সুকৌশলে প্রচার করেন।

এসএ টিভির ক্যামেরায় স্টাফ রিপোর্টার সোহেল কর্তৃক ওই সাক্ষাত্কারটি ঢাকা বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশনে ধারণ করা হয়।

তাঁর উপস্থাপনা ও বর্ণনায় মানহানিকর মিথ্যা অভিযোগ উত্থাপন করে এসএ টিভির স্টাফ রিপোর্টার ফেসবুক পেজে দেওয়া ভিডিওতে প্রচার করেন।

সেখানে বেশ প্রচার করা হয় বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি জবরদখল করে জহিরের ৪০ বিঘা সম্পত্তি ভোগ করছেন।

সাত লাখ ৬৫ হাজার ভিউয়ার ফেসবুকে আপলোড করা ওই ভিডিও দেখেছে এবং শেয়ার করা হয়েছে ১৭ হাজারের বেশি।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশিকে এমন মিথ্যা মানহানিকর খবর প্রকাশের মাধ্যমে হেয়প্রতিপন্ন করা হয়েছে বলে ১০০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে মানহানির মামলা দায়ের করা হয়।

বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ শেষে বিচারক ওই দিন বিকেলে চার আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

মামলার পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে ২২ জুলাই।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.